Header Ads

Header ADS

বিকাশ থেকে টাকা চুরি হয় কিভাবে? বাঁচার উপায়।


বিকাশ অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে টাকা চুরি! হ্যাকারদের হাত থেকে বাঁচার উপায় কি?
bkash (বিকাশ)
প্রযুক্তি ইন্টারনেটের উন্নয়নের ফলে মানুষ এখন সকল কাজের পাশা-পাশি লেনদেনের কজটাও অনলইন ভিত্তিক করতে সাচ্ছন্দবোধ করে এবং এটাকে নিরাপদ বলে মনে করে। অর্থ লেনদেনকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশের নাম আমরা সবাই শুনেছি এবং আমরা অনেকে ব্যাবহারও করি, আমাদের দেশে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের এম মাধ্যমে অর্থ লেনদেনে জনপ্রিয়তা দিনদিন বেড়েই চলেছে এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠান হলো বিকাশ। বিকাশ নিয়ে ২০০৭ সালে গবেষনামূলক কাজ শুরু হয় এবং ২০১১ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে কার্জক্রম শুরু হয়। 

জেনে নিন ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক হয় কি কারনেএখানে ক্লিক করুন
এবার জেনে নেই কিভাবে বিকাশ অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়?

অনেক ভাবেই বিকাশ অ্যাকাউন্ট হ্যাক হতে পারে তবে হ্যাকাররা  সচরাচর যে পদ্ধতিগুলো ব্যাবহার করে সেগুলোই আপনাদের সামনে তুলে ধরবো, প্রথমে আপনাকে অপরিচিত নাম্বার থেকে ফোন করে বিভিন্ন লোভ দেখিয়ে আপনার অ্যাকাউন্টের পিন নাম্বারও অন্যান্য তথ্য সংগ্রহ করে আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার চেষ্টা করতে পারে

আমার নিজের একটা অভিজ্ঞাতার কথা আপনাদের সাথে শেয়ার করি গত ০৫/০৪/২০১৯ তারিখে সকাল ১০ টার দিকে ০১৬০০১৫৭৮৯৭ এই নাম্বারে আমাকে ফোন দেয়, ফোন দিয়ে আমাকে বলা হয় আমি বিকাশের হেডঅফিস মহাখালি থেকে অমুক বলছি, নতুন বছর হিসেবে সকল বিকাশ অ্যাকাউন্টে এর তথ্য হালনাগাদ করা হচ্ছে আপনাকে গত মাস আগে তিন তিনটি মেসেজ করা হয়েছে আপনার অ্যাকাউন্টটি আপগ্রেড করার জন্য কিন্তু আপনি কিছুই করেননি এখন আপনার অ্যাকাউন্টটি সামরিকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে আপনি যদি অ্যাকাউন্টটি সচল রাখতে চান তাহলে কিছু তথ্য দিয়ে আমাকে সাহায্য করতে হবে, স্যার আপনি কি আপনার অ্যাকাউন্টটি সচল রাখতে চান নাকি আমরা আপনার অ্যাকাউন্টটি সারা জীবনের জন্য বন্ধ করে দেবো?

 
এর পরে আমি বল্লাম হ্যা আমি আমার অ্যাকাউন্টটি  সচল রাখতে চাই, তখন উনি বল্লো প্রথমে আপনার নামটা বলুন, আমি একটা ভূল নাম  বল্লাম, এর পর আমার NID নাম্বার চাইলো তাও ভূল দিলাম, এর পর বল্লো আমার  অ্যাকাউন্টে বর্তমানে কত  টাকা ব্যালেন্স আছে তাও ভূল বল্লাম এর পরে সে আমাকে বল্লো  আপনার পিন নাম্বারটি পরিবর্তন করতে হবে আপনার বর্তমান পিন নাম্বারটি দিন তখন আমি বল্লাম আপনি আমার অ্যাকাউন্টের পিন দিয়ে কি করবেন? এর পরে আরও অনেক্ষন কথা কাটা-কাটি হলো এবং শেষেমেশ সে ফোনটা কেটে দিলো কারন সে বুঝেগিয়েছে যে আমাকে দিয়ে কাজ হবে না! আসা করি আপনারা  বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন? অতএব সবাই সতর্ক থাকুন, এমনটা আপনার সাথেও হতে পারে

জেনে নিন কিভাবে ফেসবুকে ট্যাগ করা বন্ধ করবেন? এখানে  ক্লিক করুন

বর্তমান সময়ে আমাদের সবার হাতে হাতে স্মার্ট ফেন রয়েছে এবং আমরা প্রায় সবাই বিকাশ একাউন্ট ব্যাবহার করিসময়ের সাথে সাথে আমাদের জীবন যাত্রার মানও উন্নত হয়েছে। আমরা প্রতি নিয়ত ভিভিন্ন কাজের ক্ষেত্রে প্রযুক্তির সাহায্য নেই।  আমাদের  এই প্রযুক্তির ব্যাবহারের সুযোগ নিচ্ছে একদল অসৎ লোক যারা বিভিন্ন কৌশলে আমাদের বিভিন্ন একাউন্ট হ্যক করে মূল্যবান তথ্য টাকা হাতিয়ে নেয়, তবে আমরা কিছু সতকর্তা অবলম্বন করে এই ফাঁদ থেকে অনেকটাই সুরক্ষিত থাকতে পারি

সতর্কতাঃ
১। প্রথমতো হ্যাকার আপনাকে ফোন করে ভিবিন্ন অফার লেভ দেখিয়ে আপনার অ্যাকাউন্টের  তথ্য চাইতে পারে, কখনোই আপনি কাউকে আপনার অ্যাকাউন্ট সম্পর্কিত কিছু বলবেনা

২। আপনার বিকাশ অ্যাকাউন্টের পিন নাম্বার আপনি ছারা আর কাউকে ভূলেও বলবেন না

৩। মনে রাখবেন বিকাশ কখনই আপনাকে ফোন করে কিছু যানতে চাইবে না, আপনাকে যদি 
কোন তথ্য জানাতে  হয় তাহলে তারা ১৬২৪৭ নাম্বার থেকে SMS করবে

একটি স্টং ফেসবুক পাসওয়ার্ড কিভাবে সেট করবেন!এখানে ক্লিক করুন

৪। কেউ যদি আপনাকে ফোন করে বলে যে ভূলে আপনার অ্যাকাউন্টে তার টাকা চলে এসেছে তাহলে আপনার ব্যালেন্স চেক করে শিওর না হয়ে  তাকে টাকা ফেরত দিবেনা

৫। যারা বিকাশ অ্যাপ ব্যাবহার করি তারা যতটা সম্ভব সতর্ক থাকবেন কারন বর্তমানে ডিজিটাল পদ্ধতিতে  বিকাশ অ্যাপকে কেন্দ্র করে নিত্য-নতুন প্রতারণার পদ্ধতি খুঁজে বের করছে প্রতারকরা 
 ৬। এছারাও ক্লোনিং  মাস্কিং মাধ্যমে গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে প্রবেশের সুযোগ নেয় অপরাধীরা

সবশেষে আপানদের সুস্বাস্থ কামনা করে এখানেই শেষ করছি, সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন, আল্লাহ্ হাফেজ


No comments

Powered by Blogger.