Header Ads

Header ADS

অন্ডয়েড (android) কি? এন্ড্রয়েড ভার্সন কি?

জেনে নিন এন্ড্রয়েড (android) ভার্সন কি এবং  কোন ভার্সনের ফোনটি আপনার কেনা উচিত?

বিভিন্ন ভার্সনে এন্ড্রয়েড ফোন

দিন যতো যাচ্ছে মানুষ ততবেশি স্মার্ট ফোন ব্যাবহারের  দিকে বুকছে আর এর আসল কারন হলো চোট্ট একটি ডিভাইজ স্মার্টফোন  ছোট্ট ডিভাইজটি ব্যাবহার করে মানুষ খুব সহজে ভিভিন্ন ধরনের সেবা নিতে পারছে খুব সহজে। স্মর্টফোনের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করতে স্মাটফোনে ব্যাবহার করা হয় অপারেটিং সিস্টেম এমনি একটি অপারেটিং সিস্টেম হলো অ্যন্ডয়েড, বর্তমানে পুরো বিশ্বে সবচেয়ে বেশি  যে অপারেটিং সিস্টেমটি ব্যাবহার করা হয় তা হলো অ্যান্ডয়েড অপারেটিং সিস্টেম। অ্যানড্রয়েডের অনেক ডেভেলপার রয়েছে যারা বিভিন্ন এপ্লিকেশন তৈরী করে থাকে। গুগল প্লে স্টোরে  এখন প্রায় ৩৫ লাখের উপরে অ্যানড্রয়েড এপ্লিকেশন রয়েছে। আমরা এন্ড্রয়েড ফোন কেনার আগে সবাই কম বেশি কনফিউস্ড থাকি আমরা কোন ভার্সনের ফোনটি কিনবো আবার অনেকেই হয়তো জানিইনা অ্যান্ডয়েড ভার্সন কি?

আজকে আমরা আলচনা করবো এন্ডোয়েড ভার্সন নিয়ে অ্যান্ডোয়েড ভার্সন কি এটি কিভাবে কাজ করে এর গুরুত্ব এবং আপনার কোন ভার্সনের ফোনটি কেনা উচিত চলুন তাহলে শুরু করি।

এন্ডয়েড ফোন কি?

এন্ডয়েড ফোন হলো ঐ ধরনের ফোন যেসব ফোন এন্ডয়েড আপারেটিং সিস্টেমের মাধ্যেমে চালানে হয় বা যে ফোনে এন্ডয়েড অপারেটিং সিস্টেম চলে।  সারা বিশ্বে অসংখ্য এন্ডয়েড ফোন প্রস্তুত কারক কোম্পানী রয়েছে যেমন- এসার (cer), ডেল (dell), অ্যালকেটেল (alcatel), গিগাবাইট (gigabyte) হুয়াউয়ে (huawia) এইচটিসি (htc), এলজি (lg), নেক্সাস (Nexus), মটোরোলা (Motorola) , সনি (Sony), তোসিবা (Tosiba), স্যামসাং (Samsung), ভোডাফোন (Vodaphone), মাইক্রোম্যাক্স (Micromax), জেডটিই (Zte), ইত্যাদি বড় বড় কোম্পানী এন্ড্রয়েড ফোন  তৈরি করে থাকে। তবে এসব কোম্পানীর এন্ড্রয়েড ফোন বাংলাদেশে তেমন একটা পাওযা যায়না, বাংলাদেশের কয়েকটি জনপ্রীয় এন্ড্রয়েড ফোন কোম্পানী হলোঃ স্যামসাং (Samsung), সনি (Sony), মাইক্রোম্যাক্স (Micromax), সিম্ফোনি (Symphony), ওয়ালটন (Walton), বাংলাদেশে  বর্তমানে এছারাও আরও কিছু এন্ড্রয়েড ফোন কোম্পানী করয়েছে এরা বাংলাদেশের শীর্ষে রয়েছে।

এন্ডয়েড (android) কি?

সহজ ভাষায় বলতে হয় বর্তমান সময়ে আমরা যে স্মার্টফোন ব্যাবহার করছি এর বেশিরভাগ ফোনেই অ্যান্ডয়েড অপারেটিং সিস্টেম ব্যাবহার করা হয়েছে। আরও হসজ করে বলতে গেলে স্মার্টফোনের জন্য তৈরি এক ধরনের অপারেটিং সিস্টেমই হলো অ্যান্ডয়েড। ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ কম্পিউটার যেমন ভিসতা, উইন্ডোজ এক্সপি, উইন্ডোজ ৭, লিনিক্স নামের ভিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেমে চলে স্মার্টফোনেরও তেমনি একটি অপারেটিং সিস্টেমের নাম এন্ড্রয়েড। গুগল স্মার্টফোনের জন্য এই এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমটি বাজারে নিয়ে আসে। এন্ড্রয়েড ছারাও স্মার্টফোনের জন্য আরও কিছু অপারেটিং সিস্টেম আছে য়েমন-নকিয়া সিম্বিয়ান, মাইক্রোসফটের উইন্ডোজ ফোন, অ্যাপেলের আছে ios ফোন ইত্যাদি।

এন্ডয়েড ভার্সন কি? 

২০০৭ সালের নভেম্ভর মাসের ৫ তারিখে এন্ড্রয়েড ভার্সনের ইতিহাস শুরু হয়  অপারেটিং সিস্টেমের বেটা রিলিজের মাধ্যমে এন্ড্রয়েড নামক মোবাইল অপারেটিং সিস্টেমের চালু হয়। ২০০৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসের ২৮ তারিখে গুগল বানিজ্যিক ভাবে ১.০ এন্ড্রয়েড ভার্সন রিলিজ করে ধারাবাহিক ভাবে এর সংস্করণের করার লক্ষে কাজ করে এবং এন্ড্রয়েড ভার্সনের নতুন নতুন আপডেট নিয়ে আসে যাতে নতুন নতুন  ফিাচার সংযুক্ত করা হয় এটাই হলো এন্ড্রয়েড ভার্সন।

এখন পর্যন্ত যতোগুলো এন্ড্রয়েড ভার্সন এর সংস্করণ হয়েছে তার  একটি তালিকা নিন্মে দেওয়া হলোঃ-

এন্ড্রয়েড ভার্সন নাম
সংস্করন
রিলিজের তারিখ
বেটা
 ১.০
 ২৮ সেপ্টেম্বর ২০০৮
জিঞ্জারব্রেড
২.৩.৩
৯ ফেব্রুয়ারি ২০১১
আইসক্রীম স্যান্ডউইচ
৪.০.৩
১৬ ডিসেম্বর ২০১১
জেলি বিন
৪.১.x
৯ জুলাই ২০১২
কিটক্যাট
৪.৪.০
৩১ অক্টবর ২০১৩
ললিপপ
৫.০.০
৩ নভেম্বর ২০১৪
ললিপপ এমআর ১
৫.১.x
৯ মার্চ ২০১৫
মার্শম্যালো
`৬.০.০
১৫ মে ২০১৫
ন্যুগাট
`৭.০.০
২২ আগস্ট ২০১৬
ন্যুগাট এমআর ১
`৭.১.x
১৬ অক্টবর ২০১৬
অরিও
`8.0.0
২১ আগস্ট ২০১৭
ওরিও এমআর ১
৮.১.x 
৫ ডিসেম্বর ২০১৭
পাই
৯.০.০৬ আগস্ট ২০১৮

আশা করি এন্ড্রয়েড ও এন্ড্রয়েড ভার্সন সম্পর্কে কিছুটা হলেও আপনারা বুঝতে পেরেছেন। এছার এই পোস্ট সম্পর্কে আপনাদের মতামত কি তা অবস্যই কমেন্টে জানাবে এবং এন্ড্রয়েড ও স্মর্টফোন সম্পর্কে আপনাদের কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে জানাবেন আবশ্যই আপনার প্রশ্নের উত্তর পাবেন।

আজ এপর্যন্তই ভালো থকবেন সবাই, আল্লাহ্ হাফেজ।  

No comments

Powered by Blogger.